Saturday, May 30, 2020
Home Blog

বাসর রাতেই বুঝতে পারলাম বউ আমার

বাসর রাতেই বুঝতে পারলাম বউ আমার, বাংলা সিনেমার চরম ভক্ত। বউ আমাকে প্রশ্ন করেছিল, ” আমাকে দেখতে একদম দ্বিতির মতো লাগছেনা?” দ্বিতিটা কে চিনতে পারলাম না, এ নামের কোনো বান্ধবীর সাথেও পরিচয় করিয়ে দেয়নি আমায়৷ বললাম, ” দ্বিতিটা আবার কে? ” সে অবেক চাহনিতে বলল, ” চেনো না! আরে, ওইযে বাংলা সিনেমায় আলমগির, রাজ্জাক, জসিমের সাথে ছবি করতো ওই...

আমার বান্ধবীর মায়েরা ভাত মেখে

আমার বান্ধবীর মায়েরা ভাত মেখে, ওদের মুখে তুলে খাইয়ে দেন। যখন আরেকটু বড় হলাম, কি আশ্চর্য! মা আমাকে দিয়ে ঘর ঝাঁড়ু দেয়ায়,থালা বাসন মাজায়, কাপড় চোপড় ধোয়ায়। ঘর মোছায়। বান্ধবীরা বলে,তুই কি আসলেই তোর মায়ের পেটের সন্তান?নাকি তোকে পালক এনেছে? কাকীরা আমাকে দেখে আফসোস করে বলতেন, ইশ!তুই আমার মেয়ে হলে তোকে আমি পালংকে বসিয়ে রাখতাম। আর...

আমি যেদিকে দু চোখ যায় চলে যাচ্ছি

আমি যেদিকে দু চোখ যায় চলে যাচ্ছি। তারপর তুমি থেকো তোমার ইরা আপুকে আর তার বেবিকে নিয়ে। (আগের পর্বগুলো মিস করে থাকলে আমার আইডি থেকে পড়ে নিতে পারেন এবং আগামী পর্বগুলো মিস করতে না চাইলে বন্ধু হয়ে কানেক্টেড থাকতে পারেন।) তিশা দরজা খুলে শুভর শার্ট ধরে টেনে বিছানায় বসিয়ে দেয়। দিয়ে ধরামম করে দরজা আটকিয়ে দিয়ে ফ্লোরে...

তুমি আমাকে ব্ল্যাকমেইল করছো

তুমি আমাকে ব্ল্যাকমেইল করছো? তিশাঃ হ্যা করছি। তো? শুভঃতিশু,,,,, তিশাঃ শুভ,,,,, আচ্ছা থাক দিতে হবে না। ( তিশা দারিয়ে) স্যার আমি বাহিরে যাবো,,, শুভঃ( ভ্যাবাচ্যাকা খেয়ে) কেনো? তিশাঃ সেটা আমার ব্যাপার আপনাকে বলবো কেনো স্যার ( খচ্চর কোথাকার) শুভঃ এখন কোথাও যাওয়া হবে না,,,, তিশাঃ হুহ,,,, তিশা এক প্রকার দৌড়েই বের হয়ে যায়,,, শুভঃ আরে....... তি....... শা উপস্,,,,।...

সামনে ফ্রাইডে আমাদের বিয়ের ৬ মাস

সামনে ফ্রাইডে আমাদের বিয়ের ৬ মাস, পূরণ হবে ওই দিনই আমি ইরা আর আপনার ছেলের বিয়ের ব্যবস্থা করতে চাচ্ছি।আর ডিভোর্সটা ওদের বিয়ের আগে ,,,,,, না কাবিন করার পরে দিয়ে দিবো,,,,,,, কথাটা বলেই তিশা রুমে চলে যায়। শুভ মুর্তির মতো দারিয়ে পরে। ইরা ঃ শুভ,,,,,,, শুভ কিছু বলতে যাবে তার আগেই তিশা ব্যাগ নিয়ে বাসা থেকে বের হয়ে যায়। শুভ...

আকাশের অবস্থা একদমই ভালো না

আকাশের অবস্থা একদমই ভালো না। সকাল থেকেই মেঘ জমে আছে৷ দুপুরের দিকে হালকা বৃষ্টি হয়েছিলো। তবুও মেঘ কাটেনি, আরও জেঁকে বসেছে। টিউশনি করাতে এসেছিলাম, বৃষ্টির জন্যে আটকে গেছি। সাদিয়ার মা বললো, বাবা বিকালে একটু আয়োজন করব ; থেকে যাও। না করিনি, প্রথমত এই মহিলার কথা ফেলা প্রায় অসম্ভব। দ্বিতীয়ত, প্রচুর ক্ষুধা লেগেছে। কয়েকদিন ধরে মেসের মিল বন্ধ। তাছাড়া পকেটের...

কোন মা তার সন্তানকে খাবারের বিষয়ে না

কোন মা তার সন্তানকে খাবারের বিষয়ে না, করবে এটা মানতে কষ্টই হচ্ছে আমার। বললাম, ঠিকাছে।তুমি ঘুমিয়ে পড়ো। আগামীকাল আমি নুডুলস রান্না করে নিয়ে আসবোনে। ঠিকই পরের দিন নুডুলস রান্না করে নিয়ে গেলাম। -জানো স্পৃহা,দোকানে অনেক সুন্দর এক ধরণের শার্ট আসছে। টাকা থাকলে কিনতে পারতাম। -দাম কত? -৬০০ টাকা। দিলাম ৬০০ টাকা বের করে। কিনে নিও, আসি আমি। রাতে আব্বু...

রাফসান ও চায়নি এ জীবনে কাউকে

রাফসান ও চায়নি এ জীবনে কাউকে, আর বেশি কষ্ট দিতে। তাই ওর সাথে সমস্ত সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন করে চলে যাচ্ছে অচেনা শহরে। হোস্টেলে আর কতদিন?। মাঝে মাঝে রক্ত ঝরে নাক থেকে। দু'একজন বন্ধু ছাড়া কেউ ই জানেনা তার এ রোগ সম্পর্কে। মা-বাবাও না। তাদের জানালে হয়তো যতদিন বেঁচে থাকবে ততোদিন ই কষ্ট পাবে। আমি চাইনা যতদিন বেঁচে আছি ততোদিন মা-বাবা...

আজ তিনবছর রিলেশনের সমাপ্তি ডেকেছে তারা

আজ তিনবছর রিলেশনের সমাপ্তি ডেকেছে তারা। এ সময়টুকু যেন তাদের জীবনের সবচেয়ে মধুর সময়। খুনসুটি সময়ের মাঝে দেহের সাজে সবকিছু লণ্ডভণ্ড। সবকিছু নিস্তেজ। দুজনের মাঝের সেই বন্ধন ছিড়ে ফেলেছে রাফসান। কেনো যেনো মাঝে মাঝেই বুক ফেটে কান্না আসে তার, চিৎকার দিয়ে বলতে মন চায় "বিধি এ জীবন দিলে জীবনের সমস্ত সুখের ভাগিদার করে অকালে কেনো ডেকে নিয়ে যাচ্ছ এ...

দোকানপাট বন্ধ দেখে দ্বিগুণ টাকা দিয়ে

দোকানপাট বন্ধ দেখে দ্বিগুণ টাকা দিয়ে, আমার এক ফুফা মিরপুর ১০ নম্বর থেকে এক জিলাপি কারিগরকে এনে বাসায় রেখে দিয়েছে ১ মাসের জন্য বেচারা কারিগর প্রতিদিন বিকালে ইফতারের আগে মুখ চোখা করে দেড়শ গ্রাম জিলাপি বানায়... তারপর তার ডিউটি শেষ পরের দিন আবার দেড়শ গ্রাম ব্যাপারটা স্বচক্ষে দেখার জন্য তৃতীয় রোযায় একটা উসিলা নিয়ে ফুফার বাসায়...