সে লাথি মেরে ভাতগুলো ফেলে রুমে, চলে গেলো…আর এইদিকে নিশা ব্যাথায় কোঁকড়াচ্ছে…তার পেটে ব্যাথা শুরু হয়ে যায় সাথে মেন্টাল প্রেসারও বেড়ে যায় কারণ সে প্রেগন্যান্ট আর যদি এতে বাচ্চার কোনো সমস্যা হয়! তার ২মাস হতে চলেছে আর তার ওপর এমন একটা সিচুয়েশন।সে ব্যাথায় মাটিতে শুয়ে পেট ধরে কাঁদ ছিলো চিৎকার করে… তার কান্না শুনেও এলোনা রিয়াদ…রাতে খাওয়া ও হয়নি নিশার… ওইদিকে রিয়াদ বারান্দায় বসে বসে সিগারেট টানছে এবং ফোন দেখছে… ।

হঠাৎ রিয়াদের ফোনে একটা নোটিফিকেশন আসে ভিটমেট থেকে…সে সেটায় ক্লিক করলো… রিয়াদ লাইফে কখনও নিষিদ্ধ ভিডিও বা খারাপ কোনো নেশা করতো না…কিন্তু আজ তার খুব ইচ্ছে করছে… আর কিছু না ভেবে সে ভিডিও দেখতে লাগলো…তার ভিতরে উত্তেজনা বাড়তে লাগলো…আর ওইদিকে নিশা ব্যাথায় কোঁকড়াচ্ছে… প্রায় ২ঘন্টা হতে চললো…রিয়াদ একের পর এক ভিডিও দেখেই চললো…এর মাঝে তার একবার ও খেয়াল আসলো না যে নিশা মাটিতে পড়ে আছে… ।

যখন দেখলো তার ডাটা শেষ আর ভিডিও চলছে না…তখন তার নিশার কথা মনে পড়লো…তার যৌন লালসা পেয়েছে… সে ফোনটা রেখে নিশাকে খুঁজতে লাগলো…নিচে গিয়ে দেখে সে মাটিতে অজ্ঞান হয়ে আছে… তাকে ওই অবস্থায় দেখে সে তার ঘোর হতে সরে আসলো… রবি হেলথ কেয়ার এ সে কল করলো…তারা সাজেশন দিলো সাথে বললো হসপিটালে নিয়ে যেতে পসিবল হলে। রিয়াদ তখনই তাকে নিয়ে হসপিটাল এ রওয়ানা দিলো…এত রাতে গাড়ি ও পাওয়া যাচ্ছিলো না… অনেক দাম দিয়ে সে একটা সিএনজি নিলো…তখন রাত ১.৩০ প্রায়।

হসপিটালে কোনো ডাক্তার নেই…কিন্তু কেইস তো সিরিয়াস…রিয়াদ অনেক ভয় পেয়ে গেলো।সে রাগে এমন একটা কাজ কিভাবে করলো তা ভেবেই দিশেহারা সে…. সে অনেক রিকুয়েষ্ট করে হাতে পায়ে ধরে কল করিয়ে একজন ডাক্তার কে আনালো…গাইনি ডাক্তার এত রাতে আসবে তাই ডিমান্ড ও বেশি ছিলো তার। রিয়াদ এতকিছু না ভেবে সে রাজি হয়ে গেলো। আধ ঘন্টা পর ডাক্তার এলো। তিনি নিশাকে নিয়ে আলাদাভাবে চেকআপ করলো।নিশার জ্ঞান ফিরলো… ডাক্তার নিশাকে নিয়ে বের হলেন কিছুক্ষণ পর…।

এবং বললেন, -এই অবস্থায় তিনি কিভাবে এসব ফেইস করলেন? -মা মানে…কোনো সমস্যা? -আগে বলুন এসব কিভাবে হলো।আমার তো পুলিশ কে ডাকার দরকার ছিলো… -আসলে ভুলে সে পড়ে গিয়েছে… মিথ্যা শুনে নিশা হা করে তাকিয়েই রইলো… -এতবড় মহিলা কিভাবে পড়ে যায়! -সরি ডাক্তার, নেক্সট থেকে খেয়াল রাখবো… -তা অবশ্যই রাখবেন,এ যাত্রায় বেবি ও মা বেঁচে গিয়েছে…এইটা পুরোই মিরাকেল…ওকে আমি বাসায় যাচ্ছি আপনারাও যান এবার…আর আমার ফি টা আমার একাউন্ট এ পাঠিয়ে দিলেই হবে… নিশা রাস্তায় একটা কথাও বললো না…রিয়াদও একবার কথা বলার চেষ্টা করলো না… রাতে এসে ঔষদ খেয়ে নিশা শুয়ে পড়ে… কথায় বলে যে, সারদিন আর যাই হোক রাতে বউ লাগেই… লাইট অফ করার পর রিয়াদ তাকে টেনে নিয়ে নিজের কাছে আনতে চাইলে সে ধাক্কা দিয়ে দূরে সরে যায়… টাচ করা মাত্র এবার নিশা বলতে লাগলো… -সারদিন তো মনে পড়লো না এখন কি দরকার প্লিজ দূরত্ব বজায় রাখুন… -সরি প্লিজ… -না থাক…আর ভালাগচ্ছে না…।

govt jobs circular priojob.com

সব সময় সকল চাকরির খবর পেতে অ্যাপস ডাউনলোড করুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here